২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১:২০

নীলফামারীতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংশতা আহত ১১

নীলফামারী থেকে মোঃ আইয়ুব আলী: তৃতীয় ধাপের নির্বাচন শেষ হতেই নীলফামারীর সদরের রামনগর ইউনিয়নে রবিবার (২৪ এপ্রিল) সকালে দুই ভড়াডুবি প্রর্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। ওই ইউনিয়নের বাহালী পাড়া গ্রামের ২নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচন করেন রফিকুল ইসলাম (তালা) এবং অপর পদে প্রতিদন্ধিতা করেন আব্দুল হামিদ (ফুটবল) প্রতিক নিয়ে। তারা দু’জনেই ভোটে হেরে গেছেন।

সকালে দুই পক্ষের কর্মী সমার্থকদের মধ্যে কথা কাটাকািটর এক পর্যায়ে তালা মার্কার (রফিকুল) লোকজন দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে আব্দুল হামিদের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে বেধরক মারপিট ও জখম করে। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১১ জন । স্থানীয়রা তাদের উদ্বার করে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।  আহতরা হলেন, প্রার্থী আব্দুল হামিদ (৪৫) লায়লা (১৮) পাখিজা বেগম (৩৫) নুরনাহার বেগম (৪০) নুর মোহাম্মদ, (২২), জাহাঙ্গীর আলম (২৯) আবু কালাম, (১৯) রশিদুল ইসলাম (৫৫) ফারুগ মিয়া ৩৬) শিউলী, (২৫) মনি আকতার (১৯)। লায়লা ও নুর মোহাম্মদের অবস্থা অবনতি হলে তাদের দুপুরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

বাড়ী ভাঙ্গচুর, লুটতরাজ, ১০ ভড়ি স্বর্ণ ও নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন পরিবারের লোকেরা।

ঘটনাস্থল তাৎক্ষনিক পরিদর্শন করেন, নীলফামারী সদরের সহকারী ভুমি কমিশনার (ভুমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ফকরুল হাসান ( ১৬৫৫৪)।

এ বিষয়ে নীলফামারী থানার ওসি শাহাজান পাশা জানান, নির্বাচন পরবর্তী ওই দুই প্রার্থীর কর্মী সমার্থকদের ভুল বুঝাবুঝির কারনে সহিংশতার সৃষ্টি হয়। তবে সেখানে পরিস্থিতি সামলাতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/২৪.০৪.২০১৬/২১:২৯