ব্রেকিং নিউজ
১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১:২৬

মাদারীপুর শিবচরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ নিহত-১

 

আব্দুল্লাহ আল মামুন, মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি : মাদারীপুরের শিবচরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সোমবার সকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আইয়ুব আলী (৫০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সংঘর্ষে নারীসহ আহত হয় কমপক্ষে ১০ জন। তাদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার মূলহোতা আলতাব মাদবরসহ ৭ জনকে আটক করেছে শিবচর থানা পুলিশ।


একাধিক সুত্রে জানা গেছে, শিবচর উপজেলার মাদবরেরচর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাড়ে বিশ রশি নাজিমউদ্দিনকান্দি গ্রামের মেম্বার ইলিয়াস মাদবর ও একই এলাকার ইউপি নির্বাচনে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী আলতাফ মাদবরের সাথে গত ইউপি নির্বাচন থেকেই বিরোধ চলে আসছিল।

ঐ বিরোধের জের ধরে সোমবার সকালে মাদবরেরচর ইউনিয়নে নাসিরের মোড় এলাকায় আইয়ুব আলী বাজার করতে গেলে প্রতিপক্ষ হামলাকারীদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তারা আইয়ুব আলীকে ধরে নিয়ে যায় এবং পিটিয়ে ও পা দিয়ে পিষে হত্যা করে বলে নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানায়। এ ঘটনায় আরও কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

এরা ফরিদপুর মেডিকেল ও শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতরা হলেন- রহিম মাদবর(২৮), জলিল ফকির(৪০), হাবিব মাদবর(৫০), লাইলী বেগম(৪৫),আফজাল ফকির (৪০), তৈয়বালী মাদবর(৪৫)। নিহত আইয়ুব আলী সাড়ে বিশরশি গ্রামের শহর আলী মাদবরের ছেলে।


শিবচর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাকির হোসেন মোল্লা জানান, মাদবরেরচর ইউনিয়নে নাসিরের মোড় এলাকায় নিহত আইয়ুব আলী বাজার করতে গেলে হামলাকারীদের সাথে কথা কাটাকাটি বাধে। এক পর্যায়ে নিহত আইয়ব আলীকে ধরে নিয়ে গিয়ে হামলাকারীরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার মোকাদ্দেস শাহীন জানান, সকাল অনুমান ১১টার সময় আইয়ব আলী নামের এক রোগীকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে আনা হয়। তখন তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তার মাথার পিছনে আঘাতের চিহ্ণ রয়েছে। এ ছাড়া ৭/৮জন রোগীকে এ স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

কিউ এন বি /রিয়াদ /১৭ই জুলাই, ২০১৭ ইং/সন্ধ্যা ৭:২৬