১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:১২

রাজবাড়ীতে যৌনকর্মীর মামলায় আ. লীগ নেতা কারাগারে

 নিউজ ডেস্কঃ রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া যৌনপল্লির এক যৌনকর্মীর করা মামলায় গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও গোয়ালন্দ পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহাবুব রাব্বানীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে করা ওই মামলায় গোলাম মাহাবুব রাব্বানী আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে জামিনের আবেদন করেন। ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. আমিনুল হক তা না মঞ্জুর করে গোলাম মাহাবুব রাব্বানীকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মামলার বাদী দৌলতদিয়া যৌনপল্লির তালিকাভুক্ত যৌনকর্মী। তিনি নিজেকে গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর স্ত্রী এবং তাঁদের নয় বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। এই ছেলে গোয়ালন্দ পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর সন্তান দাবি করে ২০১৬ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন ওই নারী। ওই মামলার পরপর দৌলতদিয়া যৌনপল্লির কর্মীরা গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

ওই মামলায় গোলাম মাহাবুব রাব্বানী হাইকোর্ট থেকে ছয় মাসের জামিন নেন। জামিনের মেয়াদ শেষে আজ তিনি রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পুনরায় জামিনের আবেদন করলে আদালত তাঁর আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এদিকে গোলাম মাহাবুব রাব্বানীর স্ত্রী গোয়ালন্দ পৌরসভার প্যানেল মেয়র আফরোজা রাব্বানী সাংবাদিকদের বলেন, আওয়ামী লীগের মধ্যে দ্বন্দ্ব থাকায় রাজনৈতিকভাবে তাঁর স্বামীকে কোনঠাসা করে রাখার জন্য ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই সাজানো মামলা করা হয়। তিনি তাঁর স্বামীর মুক্তির দাবি জানান।

 

 

কিউএনবি/খায়রুজ্জামান/১১ই জুলাই, ২০১৭ ইং/রাত ১০:১১