২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:২৩

সৈয়দপুরে ইটভাটার কালোধোঁয়ায় ফসলের ক্ষতিপূরণের দাবিতে কৃষকদের মানববন্ধন

মোঃ আইয়ুব আলী, নীলফামারী প্রতিনিধি : ইটভাটার কালোধোঁয়ায় ফসলের ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা ক্ষতিপূরণের দাবিতে বৃহস্পতিবার (২২ জুন) বেলা ১১টার সময় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। এসময় তাঁরা সেখানে সমাবেশ করে এবং অবিলম্বে ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে স্মারকলিপি দেয়।

উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের দলুয়া ও আইসঢাল এলাকায় বি,পিএল নামে ইটভাটার নির্গত কালোধোঁয়ায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এসব এলাকায় কাংখিত ফসল উৎপাদন হচ্ছে না, নেমে এসেছে ফলনে বিপর্যয়। এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা কয়েকদফা ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ক্ষতিপূরণ দাবি করলেও অগ্রাহ্য করা হয়। ফলে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা ইটভাটার চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেন।

এতকিছুর পরেও কাজ না হওয়ায় বৃহস্পতিবার ক্ষতিগ্রস্থ শতাধিক কৃষক ও তাদের পরিবার ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কমৃসূচি পালন করেন। এসময় সেখানে সমাবেশও অনুষ্ঠিত হয়। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক মইদুল ইসলাম, আব্দুল জব্বার ও আবুবক্কর সিদ্দিক জানান, বিপিএল ইটভাটার চিপনীর উচ্চতা কম থাকায় এলাকায় ব্যাপক ফসলের ক্ষতি হয়েছে কিন্তু মালিক পক্ষ ক্ষতিপূরণ প্রদানে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না।

এ প্রসঙ্গে সৈয়দপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ হোমায়রা মন্ডল জানান, কৃষকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপ-সহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা সুনীল কুমার দাসের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করেন। ওই প্রতিবেদনে দলুয়ার চার লাখ ৪২৪ টাকা ও আইসঢালে দুই লাখ ৭ হাজার ৪০২ টাকার ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) আবু ছালেহ মো. মুসা জঙ্গী জানান, ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের আইন আমলে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।কামারপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম লোকমান জানান, বার বার নোটিশ দেওয়া সত্বেও ইটভাটা মালিক কোনো পাত্তা দিচ্ছেন না।

এ প্রসঙ্গে ইটভাটা মালিক সুরেশ সিংহানিয়া বলেন, কালোধোঁয়ার কারণে মাত্র দুইজন কৃষকের ক্ষতি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বাকীরা অযৌক্তিকভাবে দাবি করে খোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন।

কিউএনবি/রেশমা/২২শে জুন,২০১৭ ইং/ রাত ১০:২৫