২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:৩৮

খাগড়াছড়ির পানছড়িতে ভুতের থাবায় ওঝা কাত

খাগড়াছড়ি থেকে চাইথোয়াই মারমা: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার পানছড়ি উপজেলায় অপচিকিৎসা একটি সামাজিক ব্যাধি। এই অপচিকিৎসা করতে গিয়ে জেলার সীমান্তবর্তীপানছড়ি উপজেলায় ভুতের থাবায় এক ওঝা আহত হওয়ার খবরে নির্বাচনী চায়ের আসরে জমে উঠেছে মুখরোচক গল্প।

এলাকার মানুষের মাঝে এ খবর পরিণত হয়েছে হাসির খোরাকে। আর এ বে-রসিক ঘটনা ঘটেছে উপজেলার ৫নং উল্টাছড়ি ইউপির মোল্লাপাড়া গ্রামে।

সরেজমিনে এলাকার প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, মোল্লাপাড়া গ্রামের বকুল মিয়া ছেলে শফিকুল ইসলাম(২৫)কে শুক্রবার রাত আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে ভুতে আছর করে। আর এ ভুত তাড়াতে একই গ্রামের ওঝা হিসাবে খ্যাত মৃত আবদুর রাজ্জাকের ছেলে সিএনজি চালক মো: মোতালেব মিয়ার স্মরণাপন্ন হয়।

মোতালেব মিয়া খবর পেয়ে বকুল মিয়ার বাড়িতে ভুত তাড়াতে গেলে কথিত ভুত শফিকুল ওঝাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। এতে ওঝা গুরুতর আহত হয়। পরে এলাকাবাসী ওঝা মোতালেবকে উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এদিকে শফিকুলের ভুত তাড়াতে শনিবার সকালে হাজির হয় ওঝা আবদুছ সোবহান।

ওঝা সোবহান এ প্রতিবেদককে জানায়, মোতালেব ওঝা কুফুরী করেছিল বলেই ভুতেরা রাগে তাকে মারধর করে। সে আরো জানায়, শফিকুলের বাড়ির আশে-পাশে ভুতের একটি আস্তানা রয়েছে যেখানে ৭টি ভুত আছে। তার দাবী শফিকুলকে আছর করা সবকটি ভুতই বর্তমানে তার কবজায় আটক রয়েছে।

শনিবার রাতে ভুতের সাথে তার হিসাব-নিকাশ হওয়ার বলেও জানায়।

এ নিয়ে পানছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা: সনজীব ত্রিপুরা জানায়, আসলে ভুত-প্রেৎ বলতে কিছুই নেই। চিকিৎসা শাস্ত্রে এসবের কোন ভিত্তি বা সত্যতা নাই। হয়তো রোগী ক্ষনিকের ভারসাম্য হতে পারে। তার জন্য ডাক্তারী চিকিৎসা রয়েছে। ওঝা দিয়ে চিকিৎসা করানো আইনত অপরাধ। এ ব্যাপারে সাধারণ জনগনকে সচেতন হয়ে অপচিকিৎসা রোধ করতে হবে।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/১৭.০৪.২০১৬/১৬:৫৯