১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:০৭

মানিকগঞ্জে উমা দেবী হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি

নিউজ ডেস্কঃ  ইত্তেফাকের সিংগাইর প্রতিনিধি মানবেন্দ্র চক্রবর্তীর মা উমা দেবী হত্যা ও ডাকাতি মামলায় পাঁচজনকে ফাঁসি ও ২০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আল মাহমুদ ফায়জুল কবীর এই রায় দেন।

মৃতু্যদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন ইছাক ভূইয়া (৪০), ইমান আলী (৪৫), বাচ্চু (৪৫), শহিদুল ইসলাম (৪০) ও নান্নু মিয়া (২৪)।

রাষ্ট্রপক্ষর আইনজীবী এপিপি মথুর নাথ সরকার জানান, ২০১০ সালের ৯ আগস্ট রাতে সিংগাইর পুকুরপাড় এলাকায় উমা দেবীকে তাঁর নিজ বাড়িতে শ্বাসরোধে হত্যা করে ডাকাতরা। এ সময় তারা ওই বাড়ি থেকে ১২ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনার পর দিন উমা দেবীর ছেলে মানবেন্দ্র চক্রবর্তী সিংগাইর থানায় একটি হত্যা ও ডাকাতি মামলা দায়ের করেন।

২০১১ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) এসআই আব্দুস সালাম আদালতে ওই পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এই মামলায় মোট ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে পাঁচজন আসামির মধ্যে তিনজন উপস্থিত ছিলেন। আসামি ইমান আলী ও নান্নু মিয়া জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন।

রাষ্ট্রপক্ষর আইনজীবী মথুর নাথ সরকার জানান, সাক্ষ্য প্রমাণে আদালতে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে সঠিক রায় দিয়েছেন।

বাদী সাংবাদিক মানবেন্দ্র চক্রবর্তী জানান, আসামিরা তাঁর মাকে হাত পা বেঁধে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে। দীর্ঘ সাত বছর পর আজ মা হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে  বিচারক রায় দিয়েছেন। এই রায়ে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার করে দ্রুত রায় কার্যকরের দাবি করেন।

আসামিপক্ষর আইনজীবী শিপ্রা রানী সাহা জানান, বাদী মামলায় এজাহারের আসামিদের নাম উল্লেখ করেননি। তার পরও তদন্ত কর্মকর্তা এদের আসামি করে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন। এই রায়ে তারা সন্তুষ্ট নই, উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে। আসামিপক্ষর আইনজীবী ছিলেন শিপ্রা রানী সাহা, মেজবাউল হক ও মাধব সাহা।

কিউএনবি/খায়রুজ্জামান/৬ই জুন, ২০১৭ ইং/দুপুর ২:৩৩