২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:২৮

শ্রীবর্দীর পৌর মেয়রকে বরখাস্ত ও গ্রেফতারের নির্দেশ

শেরপুর থেকে সুজন সেন: দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে শেরপুরের শ্রীবর্দী উপজেলায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে শ্রীবর্দী পৌরসভার মেয়রকে বরখাস্ত ও গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আজ ১৩ বুধবার দুপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে জেলা প্রশাসক ডা. এ এম পারভেজ রহিম জানিয়েছেন।

শ্রীবর্দী পৌরসভার মেয়র আবু সাঈদ শ্রীবর্দী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। গত ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে তিনি মেয়র নির্বাচিত হন।

জানা গেছে, গত ৩১ মার্চ দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে শ্রীবর্দী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের খামারদহেরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে  ভোট গণনা শেষে ওই কেন্দ্রের ভোটের ফলাফল প্রকাশের দাবিতে মেয়র-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর  লোকজন প্রিসাইডিং ও অন্য কর্মকর্তাদের অবরোধ করে রাখেন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাবিবা শারমীন কর্মকর্তাদের উদ্ধার করতে কেন্দ্রে যান। ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স নিয়ে কেন্দ্র  থেকে ফেরার পথে মেয়রের নেতৃত্বে উচ্ছৃঙ্খল লোকজন ইউএনওর গাড়িতে হামলা করেন। এতে ইউএনও ও তার গাড়িচালক পিন্টু মিয়া আহত হন। পরে ইউএনওর সঙ্গে থাকা র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

বিষয়টি শেরপুরের জেলা প্রশাসক ডা. এএম পারভেজ রহিম বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে এ বিষয়ে একটি চিঠি দেন। চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে মেয়র আবু সাইদের আচরণ অনভিপ্রেত, অনাকাঙ্খিত ও নির্বাচনী আচরণবিধি পরিপন্থী এবং স্থানীয় প্রশাসনের জন্য হুমকিস্বরূপ। জরুরি ভিত্তিতে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানানো হয় চিঠিতে। চিঠির অনুলিপি নির্বাচন কমিশন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েও দেয়া হয়।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/১৩.০৪.২০১৬/১৭:২৯