২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:৩৬

চাকমাদের ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে ’বিজু’ উৎসব শুরু

খাগড়াছড়ি থেকে চাইথোয়াই মারমা: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার একমাত্র বড় চেঙ্গী নদীতে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বৈসু-সাংগ্রাই-বিজু(বৈসাবি)’র মূল আনুষ্ঠানিকতা।

মঙ্গলবার ভোরে জেলা সদরের চেঙ্গী নদীতে ফুল ভাসানোর মধ্য দিয়ে চাকমা সম্প্রদায়ের ফুল বিজু উৎসব শুরু হয়েছে। ফুল ভাসানোকে চাকমারা ফুলবিজু হিসেবে পালন করে।

পূর্বাাকাশে সূর্যোদয়ের পূর্বে জেলা সদরের চেঙ্গী নদীর পাড়ে চাকমা তরুণ-তরুণী, নর-নারী ও শিশু কিশোরা ফুল নিয়ে জলদেবতাকে পূজা করার উদ্দ্যেশ্যে ফুল ভাসায়। এছাড়া জেলার অন্যান্য উপজেলাগুলোতে ফুল বিজু উদযাপনের খবর পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে চাকমাদের বিজু, মারমাদের ঘর-দুয়ার সাজানো-বৌদ্ধ বিহারে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা করা মধ্য দিয়ে ১৩এপ্রিল জলকেলী বা জলোৎসব পানি সিক্ত করবে ও ত্রিপুরাদের বৈসুক।

এ উপলক্ষে সকাল থেকে আদিবাসীদের  বিভিন্ন ধর্মীয় উপসানলয় গুলোতে চলছে বিশেষ প্রার্থনা। চলছে ঘরবাড়ির সাজসজ্জা ও অতিথি আপ্যায়নের প্রস্তুতি।

অন্যদিকে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের লোকজন পুরানো বছরের দু:খ গ্লানি মুষে ফেলতে ও নববর্ষকে স্বাগত জানাতে সকাল থেকে যাত্রী বাহি গাড়ী ভরে ভরে যাচ্ছে আধ্যাত্মিক তীর্থস্থান দেবতা পুকুরে স্নান করতে। দেবতা পুকুরটি জেলার মহালছড়ি উপজেলা মাইসছড়ি ইউনিয়নে অবস্থিত। ত্রিপুরাদের বিশ্বাস এটি দেবতার খনন করা পুকুর। তাই প্রতিবছর বৈসুক কিংবা যেকোন ধর্মীয় বিশেষ দিনে তারা সেখানে গিয়ে স্নান করে।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/১২.০৪.২০১৬/১৯:৪৮