১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:১০

৫৭টি গ্যাস কূপ খননের পরিকল্পনা রয়েছে : নসরুল হামিদ

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, দেশের ক্রমবর্ধমান গ্যাসের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে ২০২১ সালের মধ্যে ৫৭টি অনুসন্ধান কূপ খননের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার।  এরমধ্যে ৪৩টি উন্নয়ন কূপ খনন এবং ২০টি কূপের ওয়ার্কওভার করারও পরিকল্পনা রয়েছে। এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে এসব কূপ থেকে আনুমানিক দৈনিক ১ হাজার ৭৮ থেকে ১ হাজার ২৪০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে চট্টগ্রাম-১১ আসনের সাংসদ এম আব্দুল লতিফের লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী সরকারের এ পরিকল্পনার কথা জানান।

তিনি বলেন, গ্যাসের মজুদ বৃদ্ধির জন্য অনুসন্ধান কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। অনুসন্ধান কার্যক্রমের জন্য সাম্প্রতিক সময়ে বাপেক্সকে অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে কারিগরিভাবে বেশি শক্তিশালী করা হয়েছে এবং ভবিষ্যতে এর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

নতুন ‘গ্যাস স্ট্রাকচার’ চিহ্নিতকরণের জন্য বাকেক্স কর্তৃপক্ষ দেশের বিভিন্ন এলাকায় দ্বিমাত্রিক সিসমিক সার্ভে কার্যক্রম, বিদ্যমান গ্যাস ক্ষেত্রের মজুদ পুনঃমূল্যায়নের জন্য ত্রিমাত্রিক সিসমিক সার্ভে কার্যক্রম এবং তেল/গ্যাস অনুসন্ধানের লক্ষ্যে অনুসন্ধান কূপ খনন কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলেনও জানান নসরুল হামিদ।

নসরুল হামিদ বলেন, চট্টগ্রামে গ্যাসের দৈনিক চাহিদার বিপরীতে সরবরাহ ঘাটতি আছে। দৈনিক ৪৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের চাহিদার বিপরীতে বর্তমানে দৈনিক গ্যাস সরবরাহের পরিমাণ ২৩৫ থেকে ২৪৫ মিলিয়ন ঘনফুট। তবে ২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে চট্টগ্রাম অঞ্চলে দৈনিক ৫০০ মিলিয়ন ঘনফুট হারে গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী।

এইচএস/এনএফ/আরআইপি