১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:২২

লোহাগড়ায় মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষন কেন্দ্র ভবনটি ভেঙ্গে দিয়েছে প্রধান শিক্ষক

নড়াইল থেকে শরিফুল ইসলাম: নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতিপর্বে প্রশিক্ষন কেন্দ্র খ্যাত লোহাগড়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের তৎকালিন প্রধান শিক্ষকের বাস ভবনটি ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত ছাড়াই ভেঙ্গে ফেলছেন  বিদ্যালয়ের বর্তমান  প্রধান শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় কুমার দাস।

ভবনটি ভেঙ্গে ফেলায় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি এবং এলাকার বিশিষ্টজনেরা তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে এলাকাবাসীর পক্ষে সাংবাদিক আকরামুজ্জামান মিলু  বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

রোববার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ভবনটি  ভেঙ্গে ফেলা  হয়েছে। লোহাগড়া পাইলট উচচ বিদ্যালয়ের তৎকালিন প্রধান শিক্ষক ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শা.ম আনয়ারুজ্জামান জানান, প্রধান শিক্ষকের এই বাসভবনে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি পর্বে অনেক গুরুত্বপূর্ন মিটিং হতো এবং এখানকার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী কার্যক্রম পরিচালনা করা হত এ অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধাদের। তাছাড়া এখানেই মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষন দেওয়া হত। ফলে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই ভবনটি না ভেঙ্গে সংস্কার করে সংরক্ষন করার জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির  দাতা সদস্য আবু সিদ্দিক বলেন, ভবনটি ভাঙ্গার ব্যাপারে ম্যনেজিং কমিটির কোন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি। প্রধান শিক্ষক নিজ সিদ্ধান্তেই ভেঙ্গে ফেলছেন। তিনি উন্নয়ন কাজের জন্য প্রতিষ্ঠানের নিয়ম কাননের তোয়াক্কা না করে তার নিজের পছন্দের এমসি সদস্য সরদার ফিরোজ আলমকে নিয়ে ইচ্ছামত লক্ষ লক্ষ টাকার কাজ করেন।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় কুমার দাস বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনটি ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে। ওই জায়গায় নতুন ভবন নির্মান করা হবে।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/১০.০৪.২০১৬/১৫:৫৬