১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৩২

আটঘরিয়ার বীজ উৎপাদনে সফল কৃষক বিপ্লব কুমার সেন

পাবনা থেকে খাইরুল ইসলাম : পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক বিপ্লব কুমার সেন কৃষক পর্যায়ে উন্নতমানে উচ্চফলনশীল বিভিন্ন ফসলের বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণে ব্যাপক সফলতা এনেছেন। তার উৎপাদিত বীজ উপজেলার কৃষকদের চাহিদা পূরণ করার পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী উপজেলা থেকেও কৃষকরা বীজ নিয়ে ফসল উৎপাদন করছেন। কৃষক শ্রী বিপ্লব কামার সেন দীর্ঘদিন যাবত বীজ উৎপাদন ও কৃষকদের কৃষিক্ষেত্রে পরামর্শ প্রদান করে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছেন। তার উৎপাদিত বীজ ব্যবহার করে উপকৃত হচ্ছেন এলাকার কৃষক।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, আটঘরিয়া পৌরসভার উত্তরচক গ্রামের সন্তোশ কুৃমার সেনের ছেলে শ্রী বিপ্লব কুমার সেন ২০০০ সাল থেকে কৃষক পর্যায়ে মানসম্মত উচ্চফলনশীল ধান, গম, সরিষা, তিল, মসুর, কালোজিরা ও মুগসহ বিভিন্ন মাঠ ফসলের বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ করে কৃষিক্ষেত্রে অবদান রেখে চলেছেন। বীজ উৎপাদনে সফলতায় চলতি বছর তিনি বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক পেয়েছেন।
গত বোরো মৌসুমে তিনি ব্রি-ধান ২৮, ব্রি-ধান ২৯ জাতের প্রায় ৮ টন এবং রোপা আমন মৌসুমে বিনা ধান-৭, ব্রি-ধান ৪৯, ব্রি-ধান ৫১ ও ৫২ জাতের প্রায় ৪ টন ধান বীজ কৃষকদের কাছে বিক্রি করেছেন।
এ ছাড়াও রবি মৌসুমে বিজয় ও প্রদীপ জাতের প্রায় ৭ টন গম বীজ, টরি-৭ ও বারি সরিয়া-১৪ ও বারি সরিষা-১১ জাতের ২ টন সরিষার বীজ বিক্রি করেছেন। পাশাপাশি বিভিন্ন মাঠ ফসলের বীজ কৃষকরা তার কাছ থেকে সংগ্রহ করে থাকেন।
এ বিষয়ে কৃষক বিপ্লব কুমার সেন বলেন, স্থানীয় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় দীর্ঘ ১৫ বছর যাবত কৃষক পর্যায়ে বীজ উৎপাদন ও উৎপাদিত বীজ কৃষকদের মাঝে বিতরণ করে আসছেন।
তিনি আরো জানান, দীর্ঘদিন কৃষক মাঠ স্কুলের কৃষক সহায়তাকারী (এফএফ) হিসাবে কৃষক মাঠ স্কুল পরিচালনা করে আসছেন। এ ছাড়াও আইপিএম, আইসিএম এবং বর্তমানে আইএফএম ক্লাবের প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি কৃষি অফিসের সার্বিক সহায়তায় এলাকার কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করে আসছেন।
এ বিষয়ে উপজেলার নাদুরিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুস সামাদ জানান, আমরা বিপ্লব সেনের কাছ থেকে বিভিন্ন ফসলের বীজ সংগ্রহ করে আবাদ করে আসছি। তার উৎপাদিত বীজ অত্যন্ত মানসম্মত ও গুণগত উপায়ে সংরক্ষণ করায় তার উৎপাদিত বীজ দিয়ে আবাদ করে সফলতা পেয়েছি।
আটঘরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শ্রী প্রশান্ত কুমার সরকার বলেন, কৃষক শ্রী বিপ্লক কুমার সেন আমাদের কৃষি অফিসের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেন। আমরাও তার উৎপাদিত বীজের গুণগত মান ও সংরক্ষণ পদ্ধতি সার্বক্ষণিক তদারকি করে থাকি। তার উৎপাদিত বীজ কৃষি অফিসের সব নিয়ম-কানুন অনুসরণ করেন। তাই আমরাও কৃষকদের তার কাছ থেকে বীজ সংগ্রহের কথা বলে থাকি। তার বীজ মাঠ পর্যায়ের ফলাফল অত্যন্ত ভালো।
এলাকার কৃষকদের দাবি, কৃষক শ্রী বিপ্লব কুমার সেন যদি কর্তৃপক্ষ আরো উন্নত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বীজের উৎপাদন ও সংরক্ষণ বিষয়ে সার্বিক সহায়তা করে তাহলে স্থানীয় পর্যায়ে কৃষিক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কৃষি উপকরণ বীজের ঘাটতি পূরণ করার পাশাপাশি বীজের বৈচিত্র্য আনায়ন করা সম্ভব।

তারিখ: ০৯-০৪-২০১৬/কুইকনিউজবিডি/রাকিব/ সময়:১০:৫৫