ব্রেকিং নিউজ
৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:১০

মনিরামপুরে চরমপন্থি নেতা রফিক হত্যা মামলার আসামি প্রকাশকে কুপিয়ে হত্যা

 

স্টাফ রিপোর্টার,মনিরামপুর(যশোর) : যশোরের মনিরামপুরে চরমপন্থি নেতা রফিক হত্যা মামলার অন্যতম পলাতক আসামি প্রকাশ মল্লিকের লাশ রোববার সকালে পুলিশ একটি মৎস্যখামার থেকে উদ্ধার করেছে। প্রকাশ চন্দ্র মল্লিক অভয়নগর উপজেলার সুন্দলী ইউনিয়নের ফুলেরগাতী গ্রামের প্রহল্লার্দ মল্লিকের ছেলে। শুক্রবার সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে নেহালপুরের উদ্দেশ্যে বের হয়ে আর ফেরেনি তিনি। ভাড়ার মোটরসাইকেল চালক হলেও মূলত: প্রকাশ ছিলেন নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থি একটি সংগঠনের সক্রিয় সদস্য। গতবছর রফিক হত্যা ছাড়াও ২০০১ সালের চাঞ্চল্যকর চার হত্যা(ফোর মার্ডার)সহ কয়েকটি মামলার আসামি ছিলেন প্রকাশ মল্লিক। তিনি দীর্ঘদিন পলাতক জীবনযাপন করছিলেন। কয়েকদিন আগে তিনি গোপনে নিজের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। পুলিশ ও এলাকাবাসীর ধারনা তার প্রতিপক্ষদের হাতেই খুন হতে পারে প্রকাশ।

পুলিশ লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করেন। তবে হত্যাকান্ডের ঘটনায় পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। প্রকাশের স্ত্রী বিউটি মল্লিক জানান, রফিক হত্যা মামলায় আসামি হওয়ার পর বেশ কয়েকমাস পলাতক জীবনযাপন করে তার স্বামী কয়েকদিন আগে বাড়িতে আসেন আদালতে আত্মসমর্পনের প্রস্তুতি নিতে। প্রকাশ মল্লিকের বড় মেয়ে পিয়া মন্ডল জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে তার বাবা এলাকার পলাশ কুমার নামে এক ব্যক্তির সাথে মোটরসাইকেলে করে নেহালপুরের কালিবাড়ি বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এরপর থেকে তারা প্রকাশের কোন সন্ধান পাননি।

রোববার বেলা ১১ টার দিকে কালিবাড়ি-মনোহরপুর সড়কের পাশে ওয়াদুদের মৎস্যখামারে প্রকাশের লাশ ভাসতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে নেহালপুর ফাঁড়ি ও মনিরামপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে প্রকাশের লাশ উদ্ধার করে। নিহত প্রকাশের বড়ভাই অসিত মল্লিক জানান, তাদের ধারনা পূর্ব শক্রতার জেরে দূর্র্বৃত্তরা হয়ত প্রকাশকে কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে এনে হত্যার পর মৎস্যখামারে ফেলে গেছে। লাশের মাথা ও গলায় ক্ষত(কোপানো) চিহ্ন রয়েছে। পুলিশের ধারনা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে উল্লেখ করে মনিরামপুর থানার ওসি(তদন্ত) গাজী মো: মাহাবুবুর রহমান জানান, প্রকাশের নামে রফিক হত্যা ও চাঞ্চলকর চার হত্যা মামলাসহ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

তবে এর মধ্যে সব মামলাতে প্রকাশ মল্লিক জামিনে থাকলেও রফিক হত্যা মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত হয়ে পলাতক ছিলেন। উল্লেখ্য ২০০১ সালে হরিদাসকাটির দিগঙ্গা-কুচলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে চরমপন্থিদের ব্রাশ ফায়ারে নিহত হয় বুলবুল, সেদু, ধনঞ্জয় ও দেবু। এছাড়াও একই বছরে খুন হয় অভয়নগরের যুবক ইকরামুল ইসলাম ইকরাম। চাঞ্চল্যকর এ দুটি মামলার আসামি ছিলেন প্রকাশ মল্লিক। সর্বশেষ গতবছর মনিরামপুরে খুন হয় চরমপন্থি নেতা রফিক। রফিক হত্যা মামলাতেও প্রকাশ আসামি হয়।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/২১শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ/সন্ধ্যা ৭:৪২

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন