২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:২২

শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

 

ডেস্ক নিউজ : দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে সূচকের বড় দরপতন ঘটেছে। গতকাল বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের বড় পতনে লেনদেন হয়েছে। সূচক কমলেও ডিএসই ও সিএসইতে লেনদেন বেড়েছে। তবে উভয় শেয়ারবাজারে লেনদেনে অংশ নেওয়া অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসইর প্রধান ডিএসইএক্স সূচক ৬৫.৫৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৭ হাজার ২৪৮.৪৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। একইভাবে ডিএসই-৩০ সূচক ৩২.৩১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২ হাজার ৭১৭.৫৬ পয়েন্টে। এদিকে ডিএসইএস সূচক ২৪.৫৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ৫৬৬.৬০ পয়েন্টে। ডিএসইতে ৩৭৬ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৬টির, কমেছে ২৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টির। ডিএসইতে এদিন ১ হাজার ৯৪৪ কোটি ৬২ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ৮২ কোটি টাকা বেশি।

অপর শেয়ারবাজার সিএসইর প্রধান সিএসইএক্স সূচক ১১৮.০৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১২ হাজার ৭১০.৬৯ পয়েন্টে। আর সার্বিক সিএএসপিআই সূচক ১৯৯.৬৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২১ হাজার ১৬১.১৯ পয়েন্টে। এ ছাড়া সিএসআই সূচক ২২.০৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৩৫০.৯৩ পয়েন্টে।

সিএসইতে ৩১৫টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৮৭টির, কমেছে ২০১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির। দিন শেষে সিএসইতে ৬১ কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ২ কোটি টাকা কম।

জানা গেছে, পুঁজিবাজারে ১০ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধনের কোম্পানি আছে মোট ৩১টি। এর মধ্যে দর বেড়েছে সাতটির। আর দর হারিয়েছে ২৪টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দর বেড়েছে ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টের ৪.৯৯ শতাংশ। তার পরই আছে কে অ্যান্ড কিউ, যার শেয়ার দর বেড়েছে ৪.৩১ শতাংশ। অন্যদিকে শ্যামপুর সুগার মিলসের শেয়ার দর কমেছে ৫.৮১ শতাংশ। দেশ গার্মেন্টসের দর ৫.৫১ শতাংশ, এইচআর টেক্সটাইলের দর ৫.১২ শতাংশ, হাক্কানি পাম্পের দর কমেছে ৪.১০ শতাংশ, বিডিঅটোকারের দর কমেছে ৪ শতাংশ।

সম্প্রতি বিনিয়োগকারীদের মনোযোগের কেন্দ্রে উঠে আসা কোম্পানিগুলোর মধ্যে লাফার্জ হোলসিম সিমেন্ট টানা দ্বিতীয় দিন উল্লেখযোগ্য হারে দর হারিয়েছে। ৫.৮৭ শতাংশ কমে শেয়ারদর ৯৮ টাকা ৮০ পয়সা থেকে হয়েছে ৯৩ টাকায়। সাম্প্রতিক উত্থানে এই কোম্পানিটির শেয়ার দর ১০৭ টাকা ৫০ পয়সা পর্যন্ত উঠেছিল। এর পর ৫ অক্টোবর থেকে দরপতন শুরু। পাওয়ার গ্রিডের দর ৫.৪৯ শতাংশ কমে ৭১ টাকা থেকে হয়েছে ৬৭ টাকা ১০ পয়সা। এ কোম্পানিটির শেয়ার দর চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে সর্বোচ্চ ৭৩ টাকা ৭০ পয়সায় উঠেছিল।

আইসিবির দর ৪.৯৮ শতাংশ কমে ১৪৮ টাকা ৬০ পয়সা থেকে হয়েছে ১৪১ টাকা ২০ পয়সা। গত ৬ অক্টোবর এই কোম্পানিটির শেয়ার দর সর্বোচ্চ ১৭৪ টাকা উঠেছিল। এর পর থেকে পতন শুরু। শেয়ারপ্রতি ৯০ পয়সা দর হারিয়েছে বেক্সিমকো লিমিটেডও। গত কয়েক দিনে এই কোম্পানির শেয়ার দর হারিয়েছে ১০ টাকার বেশি। সম্প্রতি সর্বোচ্চ দর উঠেছিল ১৫১ টাকা ৭০ পয়সা।

কিউএনবি/রেশমা/১৪ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ/সকাল ৮:২০

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন