ব্রেকিং নিউজ
১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৩০

গভীর রাতে ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় শিক্ষক ধরা

মো. নুর হাসান, পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ঝলই শালশিরী এলাকায় ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়েন মনহরী নামে এক শিক্ষক। পরে তিন লাখ টাকা জরিমানা দিয়ে ছাড়া পায়। আটক শিক্ষক মনহরী আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ঘড়াডাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি আগে থেকেই বিবাহিত। তার তিনটি সন্তান রয়েছে। 

এদিকে ওই ছাত্রী বোদা উপজেলার ঝলই শালশিরী ইউনিয়নের নিশিকান্ত গ্রামের বাসিন্দা। তিনি বর্তমানে অর্নাস তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মনহরী প্রেমের সম্পর্কের জেরে দীর্ঘদিন ধরে তিনি ওই ছাত্রীর বাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন। এ সময় অসামাজিক কাজেও লিপ্ত হতেন তারা। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন চলছিল। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে ওই ছাত্রীর বাড়িতে গোপনে প্রবেশ করে মনহরী  মাস্টার। বিষয়টিতে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাড়িতে গিয়ে তাদের আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পান।

এ সময় স্থানীয়রা ওই শিক্ষককে আটক করে ঝলই শালশিরী ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেন। পরে দুই দিন আটক থাকার পর বিষয় টি নিয়ে গত সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) ঝলই শালশিরী ইউনিয়ন পরিষদে আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাহেদ ও ঝলই শালশিরী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেনের উপস্থিতিতে বিষয়টি তিন লাখ টাকায় মিমাংসা হয়। শিক্ষক মনোহরি অধিকারী জানান, ৮/৯ বছর যাবত আমাদের সম্পর্ক, তিন লাখ টাকা দিয়ে আপোষ করেছি। রাধানগর ঘড়াডাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল লতিফ জানান, ঘটনা আমি শুনেছি, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঝলই শালশিরী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন বলেন, উভয় পক্ষের সম্মতিতে বিষয়টি আপোষ করা হয়েছে। রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাহেদ বলেন, যেহেতু মনোহরি অধিকারীর পুর্বের স্ত্রী, সন্তান আছে, এজন্য তিন লাখ টাকা দিয়ে আপোষ করে মনোহরি অধিকারী নিয়ে এসেছি। আটোয়ারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সাইফুল আলম জানান, শিক্ষক মনোহরি অধিকারীর ঘটনার বিষয় শুনেছি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কিউএনবি/আয়শা/১৯শে ডিসেম্বর, ২০২০ ইং/দুপুর ১:২২

↓↓↓ফেসবুক শেয়ার করুন